অনুর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ১৯৫ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত করেছে বাংলাদেশের যুবারা। সেই সাথে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে টুর্নামেন্ট শেষ করলো বাংলাদেশ।

শিবলীর শতক, আরিফুল এবং রিজওয়ানের অর্ধশতকে ভর করে ২৮২ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৮৭ রানেই সবগুলো উইকেট হারিয়ে ফেলে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও বাংলাদেশি বোলারদের তোপে ক্রিজে টেকা দায় হয়ে যাচ্ছিলো আরব আমিরাতের ব্যাটারদের। শুরু থেকেই প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটারদের উপর চড়াও হয়ে বসেছিলেন মারুফ মৃধা, ইকবালরা। তার সাথে সঙ্গ দেন বষণ, জীবনরা।

বোলারদের নিয়ন্ত্রণকারী বোলিংয়ে রান ক্ষরায় ভুগার পাশাপাশি একের পর এক উইকেট হারাচ্ছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাত। ৪৫ রানের মাঝেই ৫ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে আরব আমিরাত। এরপর আর ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পায়নি কেউ। যার ফলে প্রতিপক্ষ দলের ইনিংস থেমেছে মাত্র ৮৭ রানে। বাংলাদেশ ১৯৫ রানের বড় ব্যবধানে জয় পায়।

বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন মারুফ মৃধা এবং বর্ষণ। ২টি করে উইকেট নেন ইকবাল এবং জীবন।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে যায় বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে রান খড়ায় ভুগলেও পরে ঠিকই মানিয়ে নেয় বাংলাদেশ। ২য় উইকেটে ১২৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন আশিকুর রহমান শিবলী এবং চৌধুরী মোঃ রিজওয়ান।

দলীয় ১৩৯ রানে রিজওয়ান(৬০) ফিরলে আরিফুলকে নিয়ে নতুন জুটি গড়েন শিবলী। এই জুটিতে দলীয় রান দুশো পেরোয়। অর্ধশতক করে আরিফুল ফিরেন। এক পাশ থেকে ক্রিজ আগলে রাখেন শিবলী। তাকে যদিও পরপর আরও দুটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর দলপতি মাহফুজুর রহমান এসে ২১ রানের দ্রুত ইনিংস খেলেন।

মাহফুজ ফেরার পর বাকিরা আর বেশিদূর আগায়নি। শিবলী ফিরেন ১২৯ রান করে। শেষ পর্যন্ত ৮ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে ২৮২ রান।
আরব আমিরাতের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন আয়মান আহমেদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here